Sunday, November 28th, 2021

মারিশদায় প্রাণনাশের হুমকি শুভেন্দু’কে, আঙুল সবুজ শিবিরের দিকে

বুলেটিন্স ইন্ডিয়া ডেস্ক : ত্রিপুরায় তৃণমূল যুব সভাপতি সায়নী ঘোষের গ্রেফতারের পর থেকেই গরমাগরম পরিস্থিতি। টানা সোমবার চলে তৃণমূলের বিক্ষোভ। এবার সেই বিক্ষোভের জের দেখা গেল মারিশদায়। অভিযোগ, নন্দীগ্রামে বিজেপি বিধায়কের গাড়ি আটকে কুরুচিকর মন্তব্য ও প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়েছে রাজ্য বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। অভিযোগের আঙুল তৃণমূলের দিকে। ঘটনার প্রতিবাদে মারিশদা থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ করবে স্থানীয় বিজেপি নেতৃবৃন্দ।

তৃণমূল যুব সভাপতি সায়নী ঘোষের গ্রেফতারি যেন আরও উস্কে দিল সবুজ-গেরুয়া শিবিরের সংঘর্ষ। পুরভোটের প্রচারে গিয়ে আগরতলায় মুখ্যমন্ত্রীকে কুরুচিকর মন্তব্য ও একজন পথচারীর ওপর গাড়ি চাপিয়ে দেওয়ায় গ্রেফতার হয় সায়নী। রবিবার গ্রেফতারের পরই পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। টানা সোমবার দফায় দফায় চলে তৃণমূল – বিজেপি সংঘর্ষ। যদিও সোমবার সন্ধ্যেবেলা জামিনে ছাড়া পান সায়নী। কিন্তু তার জের এখনও কাটেনি। পূর্ব মেদিনীপুরের মারিশদাতে তৃণমূল সমর্থকদের বিক্ষোভের মুখে পড়েন শুভেন্দু অধিকারী। বিজেপি দলনেতার দাবি, সেই এলাকায় তৃণমূল কর্মীদের প্রতিবাদ চলাকালীন তাঁর গাড়ি আটকে তাঁকে কুরুচিকর মন্তব্য ও প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়। এমনকি, মারিশদা থানার সামনেই এই ঘটনাটি ঘটে কিন্তু পুলিশ কার্যত কোনও ব্যবস্থাই নেয়নি।

বিজেপি বিধায়ককে এহেন হেনস্থা করার দাবি নিয়ে মারিশদা থানায় তৃণমূল সংগঠনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন শুভেন্দুর আইনজীবী অনির্বাণ চক্রবর্তী। এরই পরিপ্রক্ষিতে স্থানীয় তৃণমূল নেতা কর্মীদের দাবি, সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগ করছে বিজেপি। সায়নীর গ্রেফতারির প্রতিবাদ চলাকালীন শুভেন্দু’র গাড়ি সেখান দিয়ে গেলেও তাঁকে কোনওরকম হেনস্থা করা হয়নি।

টিন্স ইন্ডিয়া ডেস্ক : ত্রিপুরায় তৃণমূল যুব সভাপতি সায়নী ঘোষের গ্রেফতারের পর থেকেই গরমাগরম পরিস্থিতি। টানা সোমবার চলে তৃণমূলের বিক্ষোভ। এবার সেই বিক্ষোভের জের দেখা গেল মারিশদায়। অভিযোগ, নন্দীগ্রামে বিজেপি বিধায়কের গাড়ি আটকে কুরুচিকর মন্তব্য ও প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়েছে রাজ্য বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। অভিযোগের আঙুল তৃণমূলের দিকে। ঘটনার প্রতিবাদে মারিশদা থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ করবে স্থানীয় বিজেপি নেতৃবৃন্দ। তৃণমূল যুব সভাপতি সায়নী ঘোষের গ্রেফতারি যেন আরও উস্কে দিল সবুজ-গেরুয়া শিবিরের সংঘর্ষ। পুরভোটের প্রচারে গিয়ে আগরতলায় মুখ্যমন্ত্রীকে কুরুচিকর মন্তব্য ও একজন পথচারীর ওপর গাড়ি চাপিয়ে দেওয়ায় গ্রেফতার হয় সায়নী। রবিবার গ্রেফতারের পরই পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। টানা সোমবার দফায় দফায় চলে তৃণমূল – বিজেপি সংঘর্ষ। যদিও সোমবার সন্ধ্যেবেলা জামিনে ছাড়া পান সায়নী। কিন্তু তার জের এখনও কাটেনি। পূর্ব মেদিনীপুরের মারিশদাতে তৃণমূল সমর্থকদের বিক্ষোভের মুখে পড়েন শুভেন্দু অধিকারী। বিজেপি দলনেতার দাবি, সেই এলাকায় তৃণমূল কর্মীদের প্রতিবাদ চলাকালীন তাঁর গাড়ি আটকে তাঁকে কুরুচিকর মন্তব্য ও প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়। এমনকি, মারিশদা থানার সামনেই এই ঘটনাটি ঘটে কিন্তু পুলিশ কার্যত কোনও ব্যবস্থাই নেয়নি। বিজেপি বিধায়ককে এহেন হেনস্থা করার দাবি নিয়ে মারিশদা থানায় তৃণমূল সংগঠনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন শুভেন্দুর আইনজীবী অনির্বাণ চক্রবর্তী। এরই পরিপ্রক্ষিতে স্থানীয় তৃণমূল নেতা কর্মীদের দাবি, সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগ করছে বিজেপি। সায়নীর গ্রেফতারির প্রতিবাদ চলাকালীন শুভেন্দু’র গাড়ি সেখান দিয়ে গেলেও তাঁকে কোনওরকম হেনস্থা করা হয়নি।

ছবি সংগৃহীত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *