Monday, January 17th, 2022

Category: বেরিয়ে পড়ি

হারিয়ে যাওয়ার নতুন ঠিকানা- তামাং গাঁও

কথা ভট্টাচার্য : সন্ধ্যেবেলা চায়ের কাপটা হাতে অনেক্ষন ধরে বসে ঝিঁঝির ডাক শুনতে শুনতে হঠাৎ করেই কেমন যেন মনে হয়, আচ্ছা  এমন নৈসর্গিক কি অদৌও কিছু হয়? নাকি সবটাই মায়া…নিছক রূপকথা?…আসলে আমাদের শহুরে কোলাহলে ...

বাঙালি পর্যটকদের হেনস্তা, জালিয়াতিরও অভিযোগ উঠল হিমাচল পথ পরিবহন নিগমের বিরুদ্ধে

কথা ভট্টাচার্য,  মানালি: ভয়াবহ যাত্রী হেনস্তার অভিযোগ উঠল  হিমাচল পথ পরিবহন নিগমের বিরুদ্ধে।  যাত্রীদের না নিয়েই সময়ের আগেই বাস স্ট্যান্ড থেকে বাস ছেড়ে যাওয়া এবং পরে রীতিমতো দুর্ব্যবহার, এমনটাই অভিযোগ এনেছেন বাঙালি পর্যটকদের একটি...

ক্ষীরাই -দেউলটি।

সৌমী বন্দ্যোপাধ্যায় অল্প সময় আর স্বল্প বাজেট থাকলে এই বেড়ানো সেরে ফেলাই যায়!নাক উঁচু যারা তাদের পক্ষে ক্ষেতে ঘুরে ঘুরে আলু- বেগুন -মূলো কিম্বা ফুলের চাষ দেখা কেমন লাগবে সে গ্যারান্টি নেই..কাজেই স্বচ্ছন্দে পোষ্ট...

‘আমার ক্লান্তির ওপর ঝরুক মহুয়ার ফুল,নামুক মহুয়ার গন্ধ’।

কথা ভট্টাচার্য্য বোলপুর…নামটা কেমন যেন আমের বোলের মত মিষ্টি একটা গন্ধকে বয়ে আনে…পলাশের মেদুরতা মেখে গেয়ে চলা বাউলের পাগল পাগল করা একরাশ বিষন্নতাও বোধহয় ভেসে আসে আর ই সাথে….সেই মেঠো সুর,সেই লাল মাটি… বড্ড...

নাম তাহার বিষ্ণুপুর, সেথায় আছে ‘সোনায়’ মোড়া মন্দির।

কথা ভট্টাচার্য্য বিষ্ণুপুর গেছিলাম। তোপসে একবার বলেছিল তার পিসতুতো দাদাটির সঙ্গে তার উলুবেড়িয়াতে ছুটি কাটাতেও আপত্তি নেই….আমার অবস্থাটাও হচ্ছে গিয়ে খানিক তাই।“তেনার” সাথে বিষ্ণপুর কেন উল্টোডাঙার মোড়ে বসে ছুটি কাটালেও সেটা ভালোই লাগবে! তাই...

অযোধ্যা পাহাড়,যেন সাক্ষাত স্বর্গ রয়েছে সেখানে; পুজোর পরে ঘুরে আসুন রুপকথার পুরুলিয়ায়।

কথা ভট্টাচার্য চড়িদার মোড়টাতে পশ্চিম দিকে মুখ করে দাঁড়ালে, বাঁদিকের ধুসর আকাশটা ভরা জৈষ্ঠ্যমাসেও কেমন যেন বোকা বানিয়ে দেয় হঠাৎ করেই….উফফ! এবার বুঝি বৃষ্টি নামবে!কিন্তু ওমা ঘাড় ঘোরাতেই কোথায় কি! কোথায় মেঘ!কোথায় বৃষ্টি!ওই যে...

এই গ্রামের প্রত্যেক পরিবারের প্রত্যেকেই শিল্পী, যাবেন নাকি বাংলার এই অখ্যাত গ্রামে?

কথা ভট্টাচার্য আজ বলব এই বাংলারই এক অখ্যাত জায়গার কথা। মেদিনীপুর জেলার এই ছোট্ট গ্রামটার ব্যাপারে অনেকেই হয়ত জানেননা, মাত্র ৫৩টি পরিবার নিয়ে ছোট্ট এই গ্রাম…”নয়া”!বাইরে থেকে দেখে আর পাঁচটা সাধারণ গ্রামের মতো লাগতেই...

সিকিমের পথে- শেষ পর্ব।

অমিত দে সেই সকালের হাড় হিম করা নাথনগ এর ঠান্ডায় আমরা প্রায় জমে যাচ্ছিলাম। সকালের চা খেলাম দু কাপ করে। তার পর আন্টির হাতের গরম সুপ আর ম্যাগি খেয়ে বেরিয়ে পড়লাম। আজ আমাদের গন্তব্য...

সিকিমের পথে – পর্ব ৩

অমিত দে আমরা একদিনেই হোম স্টে তে খুব একাত্ম হয়ে গেছিলাম। তাই একদিন বাদেই ফেরার কথা দিয়ে আমরা রেশম পথে বেরিয়ে পড়লাম। আজ আমাদের মূল গন্তব্য নাথনগ ভ্যালি। এটি পূর্ব সিকিমের শেষ গ্রাম। এই...

সিকিমের পথে – পর্ব ২

অমিত দে (প্রথম পর্বের পরে) অবশেষে রিশপ কে বিদায় জানিয়ে আমরা পাহাড়ের টানে আবার ছুটে চললাম। আমাদের আজ অনেক রকম প্রশাসনিক পারমিশন এর কাজ করতে হবে। কারণ আজ আমরা সিকিমে প্রবেশ করব। আমরা রিশপ...